1. info@www.doiniknews71.com : দৈনিক নিউজ ৭১ :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ১০:০৬ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ :
উজানচর কংশ নারায়ণ উচ্চবিদ্যালয়ের এসএসসি ফলাফল পুনঃ নিরীক্ষণে পাশের হার শতভাগ। হোমনায় রেহানা বেগম পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত;ভাইস চেয়ারম্যান নতুন মুখ। বাঞ্ছারামপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের বেসরকারি ফলাফল ঘোষণা। পরীক্ষামূলক সম্প্রচার হোমনায় ছেলের হাতে মা খুন- ছেলে আটক, বাঞ্ছারামপুরে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দিলো উজানচর কংশ নারায়ণ উচ্চবিদ্যালয় কালিকাপুর মানব সেবা সংগঠনের ঈদ সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠিত। বাঞ্ছারামপুরে ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম এমপির শাড়ি লুঙ্গি বিতরণ ভেলানগর প্রবাসী কল্যাণ সংগঠনের উদ্যোগে ঈদ উপহার বিতরণ। গ্রীন ভয়েস বাঞ্ছারামপুর উপজেলা শাখার উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ।

উজানচর সুন্নীয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসায় ১৩ বছরের শিশু ১৮ মাসে কোরআনে হাফেজ

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৫ মার্চ, ২০২৪
  • ১১০২ বার পড়া হয়েছে

ডেস্ক রিপোর্ট

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার উজানচর গাউছিয়া হামিদিয়া নজীবা বেগম সুন্নীয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা খানার হিফজুল বিভাগ থেকে ১৮ মাসে সম্পূর্ণ কোরআন হিফজ (মুখস্থ) করে হাফেজ হয়ে এলাকায় আলোড়ন সৃষ্টি করলেন মো.সাইদুল ইসলাম নামের ১৩ বছরের এক শিশু।

উপজেলার উজানচর গাউছিয়া হামিদিয়া নজীবা বেগম সুন্নীয়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানা থেকে মাত্র ১৮ মাসে সে কোরআনে হাফেজ হয়। সে বুধাইর কান্দি উত্তর পাড়ার কবরস্থান সংলগ্ন বাড়ী মো.ইকবাল হোসেন ও মাতা মোসাম্মদ নাজমা বেগমের ছেলে।

বৃহস্পতিবার (১৪ ই মার্চ) মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক মাওলানা সাজ্জাদুল ইসলাম সাদ্দামের আয়োজনে আছর নামাজের পর মাদ্রাসা হলরুমে শিশুটিকে মাদ্রাসা কমিটি ও এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে।

হাফেজ মো.সাইদুল ইসলাম উজানচর গাউছিয়া হামিদিয়া নজীবা বেগম সুন্নীয়া হাফিজিয়া মাদ্‌রাসা ও এতিমখানার হিফজুল কুরআন বিভাগের বালক শাখার শিক্ষার্থী। এখানেই তিনি পবিত্র কোরআনের হিফজ সম্পন্ন করেছেন।

হাফেজ মো.সাইদুল ইসলামের দাদী বলেন ১৮ মাসে কোরআনের হাফেজ হওয়ায় আমার পরিবারের সবাই আনন্দিত। ভবিষ্যতে হাফেজ মো.সাইদুল ইসলাম যেন বিশ্বখ্যাত আলেম হয়ে ইসলাম ও দেশের কল্যাণে কাজ করতে পারে তার জন্য সকলের কাছে দোয়া চাই।

উজানচর গাউছিয়া হামিদিয়া নজীবা বেগম সুন্নীয়া হাফিজিয়া মাদ্‌রাসা ও এতিমখানার শিক্ষক হাফেজ মো.আকিব হোসেন বলেন, শুরু থেকে হাফেজ পর্যন্ত সে আমার কাছেই পড়ে। হিফজুল কোরআন বিভাগে পড়াশোনা শেষ করে
কোরআন মুখস্হ করতে অনেক সময় লাগে সেখানে তার সময় লেগেছে ১৮ মাস। আল্লাহর অশেষ রহমতের প্রচেষ্টায় হিফজ সম্পন্ন করতে সক্ষম হয়েছে। শুরু থেকে আমি তার মধ্যে ভিন্ন প্রতিভা দেখতে পাই। আমি হাফেজ সাইদুল ইসলামের জন্য দোয়া করি ও দেশবাসির কাছে দোয়া চাই তাকে আল্লাহ তায়ালা ইসলাম, দেশ, জাতি ও মানবতার খাদেম হিসেবে কবুল করেন।

উজানচর ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য মো. ওয়ারিশ মিয়া বলেন এতো অল্প সময়ে সে কোরআনে হাফেজ হয়েছে আমরা কমিটির পক্ষ থেকে সকল ধরনের সহযোগিতা করবো। পরে সকলে মিলে হাফেজ সাইদুল ইসলামকে পাগড়ি পরিয়ে হাফেজ হিসাবে বরণ করে নেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা মো.গিয়াস উদ্দিন,সাবেক স্কুল মেম্বার অদুদ মিয়া,বুধাইর কান্দি উলামা ঐক্য পরিষদের সভাপতি মাওলানা জাকির হোসেন,কৃষ্ণনগর লঞ্চ ঘাট মসজিদের ইমাম ও খতিব মো.মনির হেসেন,এছাড়াও অন্নান্য ওলামায়ে কেরামগন,মাদ্রাসার শিক্ষক ছাত্র,গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: বাংলাদেশ হোস্টিং